আপনি কি নিজের ব্যবসা শুরু করার চিন্তা করছেন?এই আর্টিকেল  এর ৫ টি গুরুত্বপূর্ণ স্টার্টআপ টিপস আপনাকে আপনার সূচনাটিকে সফল করতে সহায়তা করবে।
প্রথমেই আপনার জানা দরকার ,একটি বিজনেস শুরু করতে কি কি প্রয়োজন? সেটি জানার জন্য অবশ্যই গুগল এর সাহায্য নিতে পারেন,সেখানে আমাদের সহ আরও অনেক রিসোর্স পাবেন যা হয়ত আপনাকে বিজনেস শুরু করতে সাহায্য করবে কিন্তু এগুলোর কোনটিই আপনাকে  কীভাবে ব্যবসায় সফল  হতে হয় সে সম্পর্কে কোনো তথ্য প্রদান করবেনা

দুর্ভাগ্যক্রমে, আপনি কেবল কাজের একটি তালিকা সম্পূর্ণ করে ব্যবসায় সফল হতে পারবেন না।আপনি ব্যবসায় সফল হতে পারবেন না,কারন আপনি ভাববেন এটি একটি ভালো আইডিয়া ,কিন্ত আসলে তা নয়।

কোন বিষয়গুলো আপনার ব্যবসাটি সফল বা ব্যর্থ হওয়া নির্ধারণ করে?

১.নিজেকে জানুন,এটিই আপনাকে প্রেরণা যোগাবে এবং নিজেকে প্রশ্ন করুন ,সফল হতে আপনি কী করতে পারবেন ,কী পরিমান অর্থ ঝুকি আপনি নিতে পারবেন?

আমরা সবাই মিলিয়ন ডলার এর মালিক হতে চাই কিন্ত আপনার এই লক্ষ্যে পৌঁছতে আপনি  কি সবকিছু করতে প্রস্তুত? সপ্তাহে কত ঘন্টা আপনি কাজ করতে পারবেন?আপনি হয়ত আরামে আয়াশে দিন কাটিয়েছেন কিন্ত এখন আপনি আপনার  এই লক্ষ্যে পৌঁছতে কতটুকু পরিশ্রম করতে পারবেন? আপনার পরিবার কতদিন পর্যন্ত আপনার পাশে থাকবে?
ব্যবসায় সফল হতে, আপনার ব্যবসায়ের পরিকল্পনাগুলির সাথে সাথে  আপনার ব্যক্তিগত এবং পারিবারিক লক্ষ্য এর সাথে সামঞ্জস্য রাখুন।

২.সঠিক ব্যবসা বেছে নিন

“প্রয়োজন খুজুন এবং সেটি পূরন করুন “
এই পদ্ধতিটি পুরাতন হলেও এখনও কার্যকর এবং এটি সবসময় কাজ করবে। ।সাফল্যের মূল চাবিকাঠিটি হ’ল যেগুলি আপনি পূরণ করতে পারবেন, যেটি আপনি পূরণ করতে চান এবং এটি লাভজনক ব্যবসা গড়ে তুলতে যথেষ্ট আয় করতে পারে।

৩. আপনি যা বিক্রি করতে চান তার জন্য সত্যিই বাজার রয়েছে কিনা তা নিশ্চিত হন।
আপনি কিছু পণ্য বা সেবা পছন্দ করেন এবং আপনার আশেপাশের কিছু মানুষ কে জানেন যারা আপনার মত সেসব পণ্য,সেবা পছন্দ করেন ।তাই আপনি ভাবতে পারেন আপনার এই পণ্য বাজারে অনেক লাভবান হবেন,আসলে স্টার্টআপগুলির মধ্যে অন্যতম  ভুল এটি।তাই প্রথমে আপনার আইডিয়া নিয়ের গবেষণা করুন,আপনি বিক্রি করতে চান এমন কিছুর বাজারে চাহিদা আছে কিনা তা সম্পর্কে অবগত হন এবং যদি আপনার পণ্যের চাহিদা থাকে তাহলে আপনি আপনার পণ্য থেকে কি পরিমাণ অর্থ পেতে পারেন সে সম্পর্কেও সচেতন হন ।সর্বোপরি যেকোন কিছু শুরু করার আগে পরিবার এবং বন্ধুমহলের সাথে আলোচনা করুন।

৪.আপনার প্রতিযোগীদের সন্ধান করুন
 আপনি যেই ধরনের ব্যবসা করছেন বা শুরু করতে  যাচ্ছেন,আপনার প্রতিযোগী থাকবেই।এমনকি আপনার মত অন্য কেউ সুযোগ সুবিধা না দিলেও আপনার টার্গেট গ্রাহকরা তাদের চাহিদা মেটাতে ব্যবহার করছেন এমন অন্যান্য পণ্য বা পরিষেবা হওয়ার খুব সম্ভাবনা রয়েছে।সফল হওয়ার জন্য, আপনাকে প্রতিযোগিতাটি গবেষণা করতে হবে এবং তারা কী বিক্রি করে এবং কীভাবে তারা বিক্রি করে সে সম্পর্কে যথাসম্ভব রিসার্চ করা উচিত

৫.সাফল্যের জন্য ৫ পরিকল্পনা।
 আপনি যদি বিনিয়োগকারীদের সন্ধান না করেন বা আপনার ব্যবসায় বিপুল পরিমাণ অর্থ বিনিয়োগ না করেন, তাহলে আপনার একটি বিশদ  ব্যবসায়িক পরিকল্পনার প্রয়োজন নাও হতে পারে।তবে আপনার এখনও একটি পরিকল্পনা প্রয়োজন।এটি আপনার লক্ষ্য ,এটি আপনার গন্তব্য নির্দিষ্ট করে এবং আপনি যেখানে যেতে চান সেখানে কীভাবে যাবেন তার একটি রোডম্যাপ। আপনার অগ্রগতি হওয়ার সাথে সাথে আপনার গ্রাহক এবং প্রতিযোগিতা সম্পর্কে আরও নতুন কিছু শিখবেন,আপনার পরিকল্পনার পরিবর্তন হবে তবে এটি আপনাকে এখনও মনোনিবেশ করতে এবং সঠিক দিকে চালিত হতে সহায়তা করবে।

Md Rakibul Islam

Md Rakibul Islam

View all posts

Add comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Connect Me

Connect Me On Social Media